লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিওর গোল্ডেন গ্লোব (২০১৬) বক্তব্য

Screen-Shot-2016-01-11-at-10.08.14-AM-728x400

বাহ, ধন্যবাদ, ধন্যবাদ। কী অবিশ্বাস্য সম্মান দিলেন আপনারা! সত্যিই চমৎকার লাগছে। ধন্যবাদ। HFPA (হলিউড ফরেন প্রেস এসোসিয়েশন)-কে ধন্যবাদ। এই ক্যাটাগরিতে অন্যান্য যারা ছিলেন, তাদের সবাইকে ধন্যবাদ। আপনারা সবাই দুর্ধর্ষ কাজ করেছেন। কী অসাধারণ একটা বছর গেলো সিনেমার জগতে।

২ বছর আগে, একটা সিনেমার কাজ করতে গিয়ে, প্রকৃতির সকল প্রতিবন্ধকতা আর সৌন্দর্যের মাঝামাঝি আমরা নিজেদেরকে আবিষ্কার করেছিলাম। সেই সিনেমাটা ছিলো বেঁচে থাকা নিয়ে, টিকে থাকা নিয়ে, অভিযোজন নিয়ে, মানুষের অদম্য স্পৃহা নিয়ে। তবে সবচেয়ে বেশি যেটা ছিলো, তা হলো – এই সিনেমাটা ছিলো বিশ্বাস নিয়ে। আর সেই বিশ্বাসের মর্যাদা সবচেয়ে বেশি যে লোকটা দিতে জানেন, সেই লোকটা হলেন আমাদের পরিচালক আলেহান্দ্রো গনজালেস ইনারিতু। ধন্যবাদ আপনাকে, এই যাত্রাতে আমাকে আপনার সঙ্গে নেয়ার জন্য। আপনার নেতৃত্ব, আপনার দৃষ্টিভঙ্গি, প্রত্যেকটা দিনকে এতো তীব্র আর বাস্তব করে তোলার প্রতি আপনার তীব্র মনযোগ – সব মিলিয়ে এরকম অভিজ্ঞতা আমার জীবনে আর কোনোদিন পাইনি।

প্রত্যেক সহকর্মীর সহায়তায় আমরা এক আধ্যাত্মিক গভীরতা তৈরি করেছি এই সিনেমাটাতে। যাদের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে আমি এই সিনেমাতে কাজ করার সুযোগ পেয়েছি, সেই সকল অভিনেতাদেরকে আমি ধন্যবাদ জানাতে চাই। বিশেষ করে, আমার সুহৃদ টম হার্ডি! সে পশুর মত খেটেছে, আর চমৎকার প্রতিভার স্বাক্ষর রেখেছে প্রত্যেকটা দিন। বাস্তব জীবনে সে আমাকে কোনোদিনও জীবন্ত পুঁতে ফেলবে না, কোনোদিনও আমাকে মরার জন্য এভাবে ফেলে আসবে না।

আমার মেকাপ আর্টিস্ট শন গ্রেগ, তুমি একটা অবিশ্বাস্য প্রতিভা! এই সিনেমাতে তুমি যে অসাধারণ খেল দেখিয়েছো, সেজন্য তোমাকে ধন্যবাদ। এই সিনেমা বানানোর জন্য যারাই কাজ করেছেন, তাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানাতে চাই আমি – মেরি পেরেন্টস, স্টিভ গলিন, ব্র্যাড ওয়েস্টিন, জিম জিওনপলিস, আর আর্নন মিলশন – এদের মত করে কেউ এ ধরনের তিক্ত সমাপ্তি পর্যন্ত এই সিনেমার সাথে লেগে থাকতো না। আপনারাই এই সিনেমার চ্যাম্পিয়ন।

আমার পুরো টিম – জেন, শন, রিক, স্টিভ, গ্রেচেন। রিক, আমাকে প্রতিনিয়ত সামনে এগিয়ে যাওয়ার আর এই ধরনের সিদ্ধান্তগুলো নেয়ার উৎসাহ দেয়ার জন্য ধন্যবাদ। আমার বাবা মা, আমি আপনাদেরকে খুব ভালোবাসি। আমার বন্ধুদেরকেও ভালোবাসি; আমার বন্ধুরা জানে যে আমি কাদের কথা বলছি। আর অবশেষে, আমি এই পুরষ্কারটা ভাগাভাগি করে নিতে চাই – এই সিনেমাতে প্রথম বিশ্বের জাতিদের প্রতিনিধিত্বকারী ব্যক্তিদের সাথে, পৃথিবীর সকল আদিবাসী গোষ্ঠীর সাথে। আপনাদের (আদিবাসী গোষ্ঠীদের) ইতিহাসকে স্বীকৃতি দেয়ার সময় এসে গেছে। কর্পোরেট ছোবল থেকে, যারাই আপনাদের কোনোরকম ক্ষতি করতে চায়, তাদের হাত থেকে আপনাদের আদিভূমিকে রক্ষা করার সময় এসে গেছে। সময় এসে গেছে, আপনাদের কথাগুলো শোনার, এবং ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য আমাদের এই গ্রহটাকে রক্ষা করার।

সবাইকে ধন্যবাদ।

প্রত্যুত্তর দিন

আপনার ইমেইল প্রকাশিত হবে না। Required fields are marked *