প্রদীপটা যখন চূর্ণবিচূর্ণ

conclusion

প্রদীপটা যখন চূর্ণ-বিচূর্ণ, ধুলোয় পতিত আলোটা তখন শুয়ে থাকে মৃতের মত; মেঘগুলো যখন বিক্ষিপ্ত, রংধনুর উজ্জ্বল রঙ্গই তখন শেষ আশ্রয়; বাঁশিটা যখন ভাঙ্গা, তখন কেউ মনে রাখে না তার মধুর সুর; অধরে যখন কথা ফোটে, তখন মনে থাকে না কোনো প্রেমালাপ। বাঁশি নয়, বাতি নয়, টিকে থাকে সুর, বেঁচে থাকে সৌন্দর্য; আত্মাটা যখন বোবা হয়ে …

ফের

mdmi0V1

চোখ রগড়ে ব-ড় করে তাকিয়েও দেখতে না পাওয়া দৃঢ় সূত্র এক। তুমি আমার সেই প্রথম দিনের হাওয়া… পর্বতমালা দুভাগ করে, সমুদ্রের বুক চিরে – আমারই কাছে এলে! – কিম জি হন মূলঃ 인연 (Destiny)

দেখতে নাও যদি পাই

Hurricane-Dominica

  বাতাস – দেখতে নাও যদি পাই, ঘাসে দোলা দিয়ে যাবে। ঝড় – দেখতে নাও যদি পাই, গাছে দোলা দিয়ে যাবে। তোমায় দেখতে নাও যদি পাই, আমায় দোলা দিয়ে যাবে। দেখতে পাই না যাকে, সকল দেখার চেয়ে সে অনেক বেশি শক্তি ধরে। মূলঃ 보이지 않아도 (What can’t be seen) [কবির নাম পাওয়া যায় নি। কবিতাটি …

ভালোবাসা, দূরভাষে……

moon in soo

ওখানে বৃষ্টি হচ্ছে বলছো? এখানে রোদ ঝলমল। তোমার দুঃখ একটু…একটু করে শুকিয়ে আসে। আমি, আস্তে আস্তে ভিজে উঠি। – মুন ইন সু মূলঃ 사랑, 오래 통화 중인 것 (Love: Making a Long Distance Phone Call)

তবুও আমি জেগে উঠি…

6948797-rising-horse

তুমি হয়তো ইতিহাস লিখবে আমাকে নিয়ে তোমার তিক্ত, মুখরোচক মিথ্যাক্ষরে। হয়তো তুমি আমায় পুঁতে ফেলবে মাটির খুব, খুব গভীরে। তবুও আমি জেগে উঠবো, ধুলোর মতই। আমার এই রুক্ষতায় কি তুমি মর্মাহত? কেন তুমি বিষাদে ডুবে যাচ্ছ? কারণ আমি আত্মবিশ্বাসে হেঁটে বেড়াই যেন মূল্যবান তৈল খনি পেয়েছি আমার নিজের ঘরেই! আমি জেগে উঠবো সূর্যের মত, চন্দ্রের মত, …

হে বসন্ত! – উইলিয়াম ব্লেইকের কবিতা

1

হে বসন্ত! তোমার ঐ শিশিরসিক্ত কেশ! তুমি সকালের পরিষ্কার জানালা দিয়ে চোখ ফেলো নিচে, এখানে। তোমার ঐশ্বরিক চোখ ঘুরাও আমাদের পশ্চিম দ্বীপটায়, যেখানে পুরো গানের দল তোমাকে উৎযাপনের তরে ছোটে, হে বসন্ত! পাহাড় গুলো কথা বলে একে অন্যের সাথে। উপত্যকারা কান পেতে শুনে। আমাদের আকাঙ্ক্ষায় ভরা চোখগুলো তাকিয়ে থাকে তোমার উজ্জ্বল প্যভিলিয়নের দিকেঃ সামনে এসো …

ভালোবাসার পরের ভালোবাসা — ডেরেক ওয়ালকট

emily-dickinson-001

সময় আসবে যখন বিশুদ্ধ আনন্দে উচ্ছসিত তুমি নিজেকে আলিঙ্গন করবে নিজের দরজায়, নিজের আয়নায় এবং তুমি আর ‘তুমি’ দুজনের ঠোঁটের কোণেই ফুটে উঠবে মুচকি হাসি, আলিঙ্গনে। এবং যা বলার আছে বলো, বসো এখানে, খেয়ে নাও। তুমি আবারো ভালবাসবে সেই আগন্তুককে, আগন্তুক তোমারই ছদ্মবেশ। কাছে ডাকো তাকে। পানাহার করাও। সর্বোপরি হৃদয়টা তাকে ফেরত দাও যাকে ভালবেসে এসেছো …

মস্তিষ্কে অনুভূত অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া

emily-dickinson-001

মরি তো প্রতিদিনই, প্রতি মুহূর্তে। আশা মরে, স্বপ্ন মরে, মরণ নিজেও মরে। সেদিনও মরেছিলাম। মস্তিষ্কে অনুভুত হয়েছিল একটি অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া। ছিল শোকার্তরা, দ্বিধান্বিত। তাদের পদধ্বনি অবিরাম মাড়িয়ে যাচ্ছিলো অনুভূতি ছেদনের আগ পর্যন্ত। যখন সবাই উপবিষ্ট একটা অনুষ্ঠান, ড্রামের মত বেজে যাচ্ছিলো মন অসাড় হওয়ার আগ পর্যন্ত। তারপর শুনতে পেলাম বাক্স উত্তোলনের কড়কড় শব্দ। সেই একই বুট জুতা …

ভ্যালেন্টাইন – ক্যারল অ্যান ডাফি

লাল গোলাপ নয়, সাটিন হার্ট নয়। আমি তোমায় দিব একটি পেঁয়াজ। পেঁয়াজ হলো বাদামী কাগজে মোড়ানো একটি চাঁদ। সে প্রতিশ্রুতি দেয় আলোর, ঠিক ভালবাসায় অতি সাবধানে কাপড় খোলার মতই। তার ঝাঁঝ প্রেমিকের মতই তোমাকে চোখের জলে অন্ধ করে দেবে। তোমার প্রতিচ্ছবিকে একটা কম্পিত বিষাদময় ছবিতে রূপান্তরিত করবে। আমি সত্যি বলছি। সুন্দর কোনো কার্ড অথবা কিসোগ্রাম নয়। আমি …

লটবহরের চরকি – বিক্রম শেঠ

going-in-circles

সকাল থেকে শুরু হয়ে দিন পেরিয়ে সাঁঝে, লম্বা আর বিচ্ছিরি এক প্লেনযাত্রার মাঝে – কচিকাঁচার কান্নাকাটি ভাঙে ধৈর্যের বাঁধ; ছলকে পড়া হুইস্কি ঢাকে খাবারের মেকী স্বাদ। এমনি এক উড়াল শেষে মালপত্র নিতে, দাঁড়িয়ে ছিলাম অধীর সব যাত্রীর সারিতে। ব্যাগেজ ক্লেমের চরকি ঘোরে লটবহর নিয়ে, সফরসাথী এক এক করে যাচ্ছে এগিয়ে। কোনো ব্যাগের দশা ভালো, কেউ …